টিকাপ্রাপ্তির বয়সসীমা নিয়ে যে সুপারিশ করলো জাতীয় কমিটি

টিকাপ্রাপ্তির

বাংলাদেশ মেইল ::

করোনাভাইরাস সংক্রমণের হার বিবেচনায় আরও বেশি মানুষকে দ্রুত টিকার আওতায় আনতে টিকাপ্রাপ্তির বয়সসীমা ১৮ তে নামিয়ে আনার সুপারিশ করেছে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি।সুপারিশে, টিকার আওতায় দ্রুত আরও বেশি মানুষকে আনার উদ্দেশ্যে বয়সসীমা ১৮ তে নামিয়ে আনা, এনআইডিবিহীন জনসাধারণকে টিকার আওতায় আনা, রেজিস্ট্রেশন সহজীকরণ ইত্যাদি বিষয়ে সরকারকে অতিসত্বর সিদ্ধান্ত গ্রহণের অনুরোধ করা হয়।

বুধবার (১৪ জুলাই) রাতে জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ সহিদুল্লা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।
 
এর আগে, সোমবার (১২ জুলাই) কমিটির ৪১তম অনলাইন সভায় এ সুপারিশ করা হয়।

সুপারিশে আরও উল্লেখ করা হয়, সারাদেশে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার সর্বোচ্চ পর্যায়ে থাকা অবস্থায় লকডাউন শিথিলের সরকারি সিদ্ধান্তে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে পরামর্শক কমিটি। এসময় কমিটি চলমান কঠোর লকডাউন আরও ১৪ দিন বাড়ানোর সুপারিশ করেছে।
লকডাউনের অংশ হিসেবে কমিটি কোরবানির হাট বন্ধ রাখার প্রস্তাব করেছে। প্রয়োজনে ডিজিটাল হাট পরিচালনার ব্যবস্থাও করা যেতে পারে। তবে সরকার লকডাউন শিথিল করে সীমিত পরিসরে কোরবানির হাট পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিলে সেক্ষেত্রে বিধিনিষেধ প্রয়োগের বিষয়ে সুপারিশ করা হয়।
 
সরকার সারাদেশে কোভিড ১৯ পরীক্ষার সংখ্যা ধীরে ধীরে বৃদ্ধি করেছে যা সন্তোষজনক। জাতীয় পরামর্শক কমিটির পূর্ববর্তী সভার সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে বেসরকারি পর্যায়ে আরটি-পিসিআর পরীক্ষার মূল্য পুনর্নির্ধারণ করায় সভায় সরকারকে ধন্যবাদ জানানো হয়।
 
দৈনিক টেস্টের সংখ্যা আরও বাড়ানোর জন্য বেসরকারি পর্যায়েও টেস্ট বৃদ্ধির প্রয়োজন। এ লক্ষ্যে টেস্টের জন্য প্রয়োজনীয় কিটের দাম আরও হ্রাস হওয়ার আরটি-পিসিআর পরীক্ষার মূল্য কমিয়ে এক হাজার থেকে ১৫শ টাকার মধ্যে নির্ধারণের পরামর্শ দেওয়া হয়।
টিকাপ্রাপ্তির/বিএম