থাইল্যান্ডে সিনোভ্যাক-অ্যাস্ট্রাজেনেকার মিশ্র ডোজের সিদ্ধান্ত

বাংলাদেশ মেইল::

করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনের পৃথক দুটি ডোজে আলাদা দুটি কোম্পানির ভ্যাকসিন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে থাইল্যান্ড। প্রথম ডোজ হিসেবে চীনের সিনোভ্যাক দেওয়ার পর দ্বিতীয় ডোজে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটি।

সোমবার (১২ জুলাই) থাই সরকারের তরফ থেকে বলা হয়েছে, দুটি আলাদা প্রতিষ্ঠানের ভ্যাকসিন প্রয়োগে গ্রাহকদের ভাইরাস প্রতিরোধ ক্ষমতা আরও বাড়বে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আনুতিন চার্নভিরাকুল এ ব্যাপারে বলেন, করোনাভাইরাসের নতুন সব ভ্যারিয়েন্ট বিশেষ করে ডেল্টার বিরুদ্ধে আরও বেশি প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলার জন্যই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, থাইল্যান্ড ও প্রতিবেশী দেশ যেমন ইন্দোনেশিয়ায় সম্প্রতি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বাড়ছে। এসব দেশে চীনের তৈরি সিনোভ্যাক ভ্যাকসিন ইতিমধ্যে প্রথম ডোজ হিসেবে ব্যাপক প্রয়োগ হয়েছে। এই প্রথম থাই সরকার পশ্চিমা কোনো দেশের ভ্যাকসিনের সঙ্গে চীনের ভ্যাকসিনের মিশ্রণ ঘটাতে যাচ্ছে।

এর আগেও অবশ্য দক্ষিণ কোরিয়া, জার্মানির মতো কিছু দেশ ভ্যাকসিনের দুই ডোজ হিসেবে দুটি আলাদা কোম্পানির ভ্যাকসিন প্রয়োগের সিদ্ধান্ত নেয়। এসব দেশে অ্যাস্ট্রাজেনেকার সঙ্গে ফাইজার বা মডার্নার ভ্যাকসিনের মিশ্রণ ঘটানো হচ্ছে।

এছাড়া থাইল্যান্ডে ইতিমধ্যে যেসব স্বাস্থ্যকর্মী সিনোভ্যাকের দুই ডোজ গ্রহণ করেছেন তাদের এমআরএনএ ভ্যাকসিন যেমন ফাইজার বা মডার্নার একটি বোস্টার ডোজ দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে।