দেশে নতুন করে কোভিড টিকা নিবন্ধনে দুর্ভোগের সাতকাহন

বাংলাদেশ মেইল ::

দেশে গত ২৬ জানুয়ারি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার জন্য নিবন্ধন শুরু হয়। পরে হঠাৎ টিকা অপ্রতুল হওয়ায় মে মাসের প্রথম সপ্তাহে নিবন্ধন বন্ধ করে দেওয়া হয়।  ওই সময় পর্যন্ত ৭২ লাখের বেশি মানুষ টিকা নিতে নিবন্ধন করেন। দুই বন্ধ রাখার পর অ্যাপের মাধ্যমে চালু করা হয়েছে টিকার নিবন্ধন  । কিন্তু নতুন করে নিবন্ধন পেতে পোহাতে হচ্ছে সীমাহীন প্রযুক্তিগত দূর্ভোগ ।

দীর্ঘসময় অপেক্ষা থেকেও অ্যাপসটির মাধ্যমে নিজের নাম নিবন্ধন করতে সক্ষম হননি চট্টগ্রামের খুলশী এলাকার সায়রা বেগম । নিজে কম্পিউটার বিষয়ে উচ্চ শিক্ষা নিয়েছেন । তার দাবি নিবন্ধনের জন্য ব্যবহৃত সুরক্ষা অ্যাপসটির প্রযুক্তিগত দুর্বলতা রয়েছে । অতিরিক্ত ডাটা প্রবাহের মাঝখানেই অ্যাপস হ্যান্ক করছে । কখনো বা দিচ্ছে  ‘ error’ বার্তা ।

বাংলাদেশে প্রবাসী শ্রমিকদের জন্য করোনাভাইরাস টিকা নিবন্ধনের প্রক্রিয়ায় জটিলতা বেড়েছে। আমি প্রবাসী অ্যাপসের মাধ্যমে বিএমআইটি রেজিস্ট্রেশন করতে পারেন নি এমন হাজার হাজার ভুক্তভোগী প্রবাসী ভীড় করছেন জনশক্তি কর্মসংস্থান কার্যালয়ে । গেল বুধবার থেকে পাসপোর্টের সার্ভার ডাউন থাকায় তাদের টিকার জন্য নিবন্ধন শুরু করা যায়নি বলে জানা গেছে।

চট্গ্রাম জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ জহিরুল আলম মজুমদার বলেন ,  নিবন্ধনের জন্য পাসপোর্ট, ভিসা ও টিকিটের পাশাপাশি সরকার নির্ধারিত ফি সংশ্লিষ্টরা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে জমা দিচ্ছেন। প্রযুক্তিগত সমস্যায় যারা পড়েছেন তারাও আসছেন । সমাধানের চেস্টা করা হচ্ছে ।

ওমান প্রবাসী রিয়াদ হাসান বলেন , এক সপ্তাহ ধরে প্রবাসী অ্যাপসে নিবন্ধন করার চেষ্টা করছিলাম । ৭০-৮০ শতাংশ কাজ শেষ হবার পরই অ্যাপসটি আর কাজ করে না । একবার ৭২ ঘন্টা অপেক্ষা করার বার্তা দেয়া হলো । ৭২ ঘন্টা পরও কাজে আসেনি অ্যাপসটি । এখন প্রতিদিন জনশক্তি কর্মসংস্থান কার্যালয়ে লাইন ধরছি । দেখি কি হয় । ‘

জনশক্তি কর্মসংস্থান ব্যুরো জানিয়েছে, সার্ভার সচল হলে সৌদিআরব এবং কুয়েতের প্রবাসীদের নিবন্ধনে অগ্রাধিকার দেয়া হবে। এদিকে নিবন্ধন প্রক্রিয়া সহজ করা এবং দ্রুত টিকার দাবিতে একদল প্রবাসী লকডাউন বা বিধিনিষেধের মধ্যে বৃহস্প্রতিবার চট্টগ্রামে বিক্ষোভ করেছেন।

সৌদি প্রবাসী কামাল উদ্দিনের সাথে কথা বলে জানা যায় , বিএমআইটি নিবন্ধনের পর টাকাও জমা দিয়েছেন তিনি । কিন্তু সুরক্ষা অ্যাপসের মাধ্যমে টিকার নিবন্ধন নিতে গিয়ে দেখা যায় আরেক ঝামেলা । সার্ভার দেখাচ্ছে আমার তথ্য ভুল । পাসপোর্ট ভুল বলছে । অথচ বার বার চেক করে দেখেছি ।

এদিকে ,গতকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ১ কোটি ২ লাখ ৪৮ হাজার ২৭ ডোজ করোনাভাইরাসের টিকা প্রয়োগ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। প্রথম দফায় অগ্রাধিকার তালিকা ছাড়া ৪০ বছরের বেশি বয়সীরা শুধু নিবন্ধন করতে পেরেছিলেন। মহামারীর দ্বিতীয় ঢেউয়ের ঊর্ধ্বগতির মধ্যে এবার সরকার টিকা দিতে সাধারণের বয়সসীমা ৩৫ এ নামিয়ে এনেছে।এর ফলে ৩৫ বয়সের বেশি সবাই টিকার জন্য নিবন্ধন করতে পারবেন। মাঝের সময়টায় গণনিবন্ধন বন্ধ থাকলেও জুনে মেডিকেল ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ বিবেচনায় নিবন্ধন চালু করা হয়।

এর মধ্যে বিশেষ অগ্রাধিকার হিসেব বয়সসীমার শর্ত শিথিল করে বিদেশগামী কর্মীদের এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক শিক্ষার্থীদের নিবন্ধনের ব্যবস্থা করা হয়।স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত মোট ৮০ লাখ ৯৭ হাজার ৯৭২ জন নিবন্ধন করেছেন ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের লাইন ডিরেক্টর, ডা. মো. শামসুল হক জানান ,প্রায় আড়াইলাখ প্রবাসীর তালিকা আইসিটি বিভাগে পাঠানো হয়েছে সোমবার থেকে নিবন্ধনের ঝামেলা মিটে যাবে এবং মঙ্গলবার থেকেই টিকা নিতে পারবেন প্রবাসীরা ।