১০ শয্যার করোনা প্রসূতি কর্নার মা ও শিশু হাসপাতালে

করোনা প্রসূতি
বাংলাদেশ মেইল::
করোনা আক্রান্ত প্রসূতি নারীদের চিকিৎসায় চালু করা হয়েছে অবস অ্যান্ড গাইনি কর্নার। এতে করে করোনা আক্রান্ত গাইনী রোগীরা পূর্ণাঙ্গ চিকিৎসাসেবা পাবেন বলে জানিয়েছেন হাসপাতাল সংশ্লিষ্টরা।হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, হাসপাতালের নতুন ভবনের চতুর্থ তলায় ১০টি শয্যা নিয়ে চালু করা হয় করোনা প্রসূতি কর্নার। এ কর্নারে একজন প্রসূতি বিশেষজ্ঞের নেতৃত্বে আছেন পাঁচজন মেডিক্যাল অফিসার, পাঁচজন নার্স ও তিনজন আয়া। এ কর্নারে প্রসূতি রোগীদের নরমাল ডেলিভারি, সিজারসহ সব চিকিৎসাসেবা দেওয়া হবে।
মা ও শিশু হাসপাতালের করোনা ম্যানেজমেন্ট কমিটির সদস্যসচিব মো. রেজাউল করিম আজাদ বলেন, হাসপাতালে করোনা চিকিৎসা শুরু হওয়ার পর থেকে করোনা আক্রান্ত প্রসূতি রোগীরা অন্য করোনা রোগীদের মতোই চিকিৎসা নিত। কিন্তু যেহেতু দুটি প্রাণের বিষয় জড়িত এবং তাদের বিভিন্ন জটিলতার কারণে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ একটি সম্পূর্ণ ইউনিট করার উদ্যোগ নিয়েছে। অবশেষে আমরা তা বাস্তবায়ন করেছি। আশা করছি করোনা আক্রান্ত গাইনী রোগীরা এখানে পূর্ণ সেবা পাবেন।

হাসপাতালের এমন উদ্যোগকে প্রশংসনীয় বলছেন চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল আজীবন সদস্য ফোরামের সদস্য সচিব লায়ন ম. মাহমুদুর রহমান শাওন।

তিনি বলেন, মা ও নিষ্পাপ শিশুর জীবন বাঁচানোর এমন উদ্যােগ প্রশংসনীয়। কারণ মাকে নিয়ে গত ১৯ দিনের বড় একটা সময় এখানে থাকা হয়েছে, গত দুদিন আমি নিজেই করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন। গাইনী রোগীদের চাপ দেখেছি নিজের চোখে, আহাজারি দেখেছি। দেখেছি চোখের সামনে ২৫/২৬ বছরের ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বার মৃত্যু। হাজার চেষ্টা করেও চিকিৎসকরা বাঁচাতে পারেনি। এ কঠিন সময়ে এমন মানবিক ইতিহাস জন্ম দেওয়ার নামই চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল করোনা ম্যানেজমেন্ট কমিটি।