আট জনের মৃত্যু
চট্টগ্রামে করোনায় মৃত্যু ও শনাক্ত কমেছে

বাংলাদেশ মেইল ::

চট্টগ্রামে করোনা শনাক্ত কমেছে। একই সাথে কমেছে করোনা শনাক্তের সংখ্যাও। চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে আরও ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। যাদের ৩ জন নগরের বাকি ৫ জন উপজেলার বাসিন্দা।

এ নিয়ে চট্টগ্রামে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ১ হাজার ৪৪ জনে দাঁড়িয়েছে।

একই সময়ে নতুন করে চট্টগ্রামে  করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন আরও ৯২৮ জন। তার মধ্যে ৫৬৩ জন নগরের ও ৩৬৫ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা। এ নিয়ে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৮৯ হাজার ৫৮৮ জনে এসে দাঁড়িয়েছে। তাদের মধ্যে ৬৬ হাজার ৩৭৫ জন নগরের বাসিন্দা ও ২৩ হাজার ৫৮৮ জন বিভিন্ন উপজেলার।

শুক্রবার রাতে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

কক্সবাজারসহ চট্টগ্রামের সরকারি-বেসরকারি ১০টি ল্যাব ও বিভিন্ন এন্টিজেন বুথে সর্বমোট ২ হাজার ৭২৪ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়।

সর্বশেষ ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামে করোনা শনাক্তদের মধ্যে লোহাগাড়ার ২ জন, সাতকানিয়ার ৬ জন, বাঁশখালীর ১০ জন, আনোয়ারার ৭ জন, চন্দনাইশের ৫ জন, পটিয়ার ৩৩ জন, বোয়ালখালীর ৬০ জন, রাঙ্গুনিয়ার ২ জন, রাউজানের ৬৮ জন, ফটিকছড়ির ৩৮ জন, হাটহাজারীর ৯৯ জন, সীতাকুণ্ডের ৩০ জন, মিরসরাইয়ের ৪ জন ও সন্দ্বীপের রয়েছেন ১ জন।

এদিকে কয়েক মাস আগে চট্টগ্রামে করোনা সংক্রমণের হার ছিল ১০ থেকে ১৩ শতাংশ। জুন মাসের সংক্রমণের হার ২০ থেকে ৩০ শতাংশ থাকলেও জুলাই-আগস্টে ৩৪ থেকে ৩৬ শতাংশের বেশি থাকছে। জুলাইয়ে রেকর্ড সংখ্যাক রোগী শনাক্ত হওয়ার পর আগস্টে সে পথেই হাঁটছে। জুলাইয়ে ২৩ হাজার করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে আড়াই’শর বেশি। সংশ্লিষ্টরা বলছেন আগস্ট আরও কঠিন হবে।

প্রতিদিন যে হারে করোনা রোগী বাড়ছে, তাতে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া যাচ্ছে না। এছাড়া গ্রামে সংক্রমণ বাড়ছে খুব দ্রুত। একেক দিন একেক উপজেলায় রোগী বাড়ছে। এছাড়া সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে শয্যা খালি নেই।

বর্তমানে নগরের পাশাপাশি উপজেলায় বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। চিকিৎসকরা বলছেন, ভারতীয় ধরনে (ডেল্টা প্রজাতি) চট্টগ্রামে সংক্রমণ হার বাড়ছে। একই সঙ্গে হাসপাতালেও রোগী রাখার জায়গা নেই।

বিএম/শনাক্ত কমেছে