ময়মনসিংহ মেডিকেলে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড

সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড

বাংলাদেশ মেইল ::

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে একদিনে আরো ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা হাসপাতালটিতে সর্ব্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড। রোববার সকাল ৮টা থেকে সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত সময়ের মধ্যে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। এটি সাম্প্রতিক সময়ে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড ।

সোমবার সকালে গণমাধ্যমকে এসব তথ্য জানান মমেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. মহিউদ্দিন খান মুন। তিনি বলেন, নিহতদের মধ্যে ৭ জন করোনা শনাক্ত হয়ে এবং ১৬ জন উপসর্গ নিয়ে মারা যান।

করোনায় মৃতরা হলেন- ময়মনসিংহ সদরের লাইলী বেগম (৫০), আবিদ মিয়া (৪৫), মাহবুব (৪০), হালুয়াঘাটের আবুল হোসেন (৭৯), ঈশ্বরগঞ্জের আলতাফ উদ্দিন (৮৫), নেত্রকোনা সদরের রাজা আলী (৭০) ও মোহনগঞ্জের বিউটি আক্তার (৫০)।

উপসর্গ নিয়ে মৃতরা হলেন- ময়মনসিংহ সদরের আব্দুল মজিদ (৫৫), গিয়াসউদ্দিন (৬৫), ঈশ্বরগঞ্জের আব্দুল হাই (৭০), গফরগাঁওয়ের নুরজাহান (৭০), ফুলপুরের সুরুজ আলী (৬০), আব্দুল হাকিম (৭০), মুক্তাগাছার আব্দুল খালেক (৬০), রবি সেন (৬০), ফুলবাড়িয়ার মকবুল হোসেন (৬৫), তারাকান্দার আব্দুল জব্বার (৬৩), জামালপুর সদরের গাজিবুর (৬৫), দেওয়ানগঞ্জের আফসার আলী (৬৫), সরিষাবাড়ির সেতারা (৫০), নেত্রকোনা সদরের অলি (১৭), গাজীপুর সদরের সাজেদা আক্তার (৩০) ও শ্রীপুরের মালেকা বানু (৭০)।

ডা. মহিউদ্দিন খান মুন জানান, করোনা ইউনিটে ২৩০ আসনের বিপরীতে বর্তমানে ৫৩৫ জন রোগী ভর্তি আছেন৷ যা এখন পর্যন্ত সর্ব্বোচ্চ। এর মধ্যে আইসিইউতে রয়েছেন ২৫ জন রোগী। নতুন ভর্তি হয়েছেন ৬২ জন ও সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৬১ জন।

এদিকে ময়মনসিংহ জেলায় ৪ জেলায় ১ হাজার ৬১৭ টি নমুনা পরীক্ষা করে ৪৯৫ জনের শরীরে করোনার সংক্রমণ পাওয়া গেছে। শনাক্তের হার ৩৯ দশমিক ৬১ শতাংশ বলে জানিয়েছে সিভিল সার্জন দপ্তর।

বিএম/সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড