সিআরবি রক্ষার দাবীতে নিউইয়র্কে প্রতিবাদ সমাবেশ

সিআরবি রক্ষার

বাংলাদেশ মেইল::

কেউ এসেছে সূদুর লং আইল্যান্ড থেকে, কেউবা কুইন্স থেকে। ফিলাডেলফিয়া, স্ট্যাটেন আইল্যান্ড, ব্রংক্স বাদ যায়নি। আর হোস্ট বোরো ব্রুকলীন তো ছিলোই।বৃষ্টির চোখ রাঙানিকে উপেক্ষা করে সাড়ে ছটার মধ্যেই উপস্হিত হয়েছিলো বেশির ভাগ সুধী। এ যেনো সিআরবি’র জন্য সকলের আকুল অনুভুতি।

দুর প্রবাসে থেকে ও চট্টগ্রামের ফুসফুস বাঁচানোর আন্দোলনে একাত্ম হয়েছিলেন সকলে। প্রচলিত বিদ্যমান আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে রেলওয়ের কতিপয় দূর্নীতিপরায়ন কর্মকর্তাদের বিচার দাবী করার মধ্য দিয়ে সমাবেশ শুরু হয়।

সচেতন নাগরিক সমাজ এবং হেল্পিং হ্যান্ডস ফর চিটাগনিয়ান ইনক্ এর যৌথ উদ্যোগে এই সভার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পরিচালক মীর কাদের রাসেল। সভার সন্চালনায় ছিলেন অপর পরিচালক মোহাম্মদ নুরুল আনোয়ার।

জ্যাকসন হাইটসের সফল জমায়েতের পর ব্রুকলীনের সমাবেশ ও ছিলো চোখে পড়ার মতো। এভিনিউ সি প্লাজার চত্বরে বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড এবং ফেস্টুন নিয়ে সবাই সামাজিক দুরুত্ব মেনে দাঁড়িয়ে ছিলেন সারিবদ্ধভাবে। সবার কন্ঠে ধ্বনিত হয়েছে একটাই দাবী, সিআরবি’তে কোন স্হাপনা নয়। হসপিটাল বানানোর পরিকল্পনা বাদ দিয়ে নতুন করে বিশেষজ্ঞ মতামতের ভিত্তিতে হাসপাতাল বানানোর ব্যবস্হা গ্রহন করা হোক। চট্টগ্রামের সকল সবুজ অন্চল এবং পাহাড় রক্ষা করা হোক। ভূমিদস্যুদের কালো তালিকা তৈরী করে তাদের সামাজিকভাবে পরিত্যাগ করার পাশাপাশি আইনানুগ ব্যবস্হা নেয়া হোক।
সমাবেশে প্রতিবাদী নৃত্য পরিবেশন করেন ফাসির কবির কাব্য।

বক্তব্য রাখেন সৈয়দ এম. রেজা, ডা: মোহাম্মদ সেলিম, কামাল হোসেন মিঠু, আজিজ নঈমী, আবু সাইদ রতন, মহিউদ্দীন চৌধুরী খোকন, ইব্রাহীম দীপু, আবুল কাশেম(চট্টল)মোহাম্মদ আরিফুল ইসলাম, মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন, রওশন হক, মোহাম্মদ শফি, অনুপ দাশ, ফরিদা শিরিন খান, মহিউদ্দীন আলমগীর, মোমেনা বেগম,এইচ বি রীতা, আমির হোসেন, ফারজিন রাকিবা সহ আরো অনেকে।

সভা থেকে অনতিবিলম্বে সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণের পরিকল্পনা বাতিলের জোর দাবী জানানো হয়। পাশাপাশি, নিউইয়র্ক সিআরবি রক্ষা আন্দোলনের পরবর্তী কর্মসূচী অচিরেই ঘোষনা করা হবে বলে জানানো হয়।