ছরা খনন করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণের অভিযোগ
হাটহাজারীতে ইউএনও’র নির্দেশে ছরা দখল কার্যক্রম বন্ধ

হাটহাজারী (চট্টগ্রাম)প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে পানি নিষ্কাশনের ছরা দখলের অভিযোগ উঠেছে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে । ছরা দখলের অভিযোগ পেয়ে ইউএনও মোঃ শাহিদুল আলম স্হানীয় ধলই ইউনিয়ন ভূমি অফিস ও চেয়ারম্যান মোঃ আলমগীরকে তদন্ত করে দখল কার্যক্রম বন্ধ করতে নির্দেশনা প্রদান করেন। ইউএনওর নির্দেশনা পেয়ে ছরা দখল কার্যক্রম বন্ধ করে দেন ।

জানা যায়, উপজেলার ২নং ধলই ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডে পাহাড়ি ঢলের পানি নিষ্কাশনের জন্য ছিলনিয়া খাল নামে একটি ছরা রয়েছে। এই ছরা দিয়ে বর্ষা মৌসুমে পাহাড়ি ঢল ও প্রবল বর্ষনের পানি নিষ্কাশন হয়ে থাকে। সম্প্রতি স্হানীয় এক ব্যক্তি পানি নিষ্কাশনের  ছরা দখল করে ভিটের সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজ শুরু করেন। পানি নিষ্কাশনের  ছরা দখলের সংবাদ সম্প্রতি স্হানীয়দের মাধ্যমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শাহিদুল আলম অবহিত হয়ে ২ নং ধলই ইউনিয়নের ভূমি অফিস ও চেয়ারম্যানকে ছরা দখল রোধ করতে নির্দেশনা প্রদান করেন। ইউএনওর নির্দেশনা পাওয়া মাত্র ঘটনাস্থলে গিয়ে ছরা দখল কার্যক্রম বন্ধ করে দেন ।

গণমাধ্যম কর্মীরা ছরা থেকে মাটি কেটে সরকারি জায়গা দখল বিষয় নিয়ে মুঠোফোনে ছরা দখলের অভিযুক্ত ব্যক্তির কাছে জানতে চাইলে, তিনি ছরা দখলের কথা অস্বীকার করে বলেন তিনি সরকারি ছরা দখল করেনি। বরং তিনি ছরার আরো দুই ফুট জায়গা ছেড়ে দিয়ে তার নিজস্ব জায়গায় সীমানা প্রাচীর নির্মাণের কাজ করছেন বলে জানান।

সূত্র জানান, পুরোনো ছরাটি দিয়ে বর্ষা মৌসুমে ধলই ইউনিয়নের পশ্চিমের পাহাড়ি ঢল প্রবাহিত হয়। গত কয়েকদিন ধরে স্থানীয় এক ব্যক্তি ছরার মাটি কেটে অবৈধভাবে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজ শুরু করেছে ।

এ ব্যাপারে ২ নং ধলই ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলমগীর জানান, বর্ষা মৌসুমে পাহাড়ি ঢলের ও বৃষ্টির পানি এই ছরা দিয়ে প্রবাহিত হয়ে থাকে। অবৈধ ভাবে ছরা দখলে চলে গেলে স্হানীয় লোকজনকে জলযটের কারনে সীমাহীন দুর্ভোগের শিকার হতে হবে।

হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শাহিদুল আলম বলেন, স্হানীয়দের কাছ থেকে ছরা দখলের অভিযোগ পেয়ে তিনি স্হানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন ভূমি অফিসকে অবহিত করে তাৎক্ষণিক ভাবে বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্হা গ্রহনের নির্দেশনা প্রদান করেছেন ।