কর্ণফুলীতে জাহাজডুবি: আরো দুই লাশ উদ্ধার

বাংলাদেশ মেইল::

চট্টগ্রমে সদরঘাট ও কর্ণফুলী ঘাটের মাঝামাঝি স্থানে ‘এফভি মাগফিরাত’ নামের ফিশিং জাহাজ ডুবির ঘটনায় আরো দুই জনের লাশ উদ্ধার করেছে কোস্ট গার্ড। এ নিয়ে ওই ঘটনায় শনিবার (১৫ অক্টোবর) পর্যন্ত ছয় জনের লাশ উদ্ধার হলো। এদিকে আর কেউ নিখোঁজ না থাকায় উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করেছে কোস্ট গার্ড।

কোস্ট গার্ড চট্টগ্রাম পূর্ব জোনের মিডিয়া কর্মকর্তা লে. (বিএন) আল আমিন এ তথ্য নিশ্চিত করেন। লে. আল আমিন  বলেন, ‘গত ১২ অক্টোবর রাতে এফভি মাগফিরাত নামক ফিশিং জাহাজটি বয়ার সঙ্গে মুরিং এ থাকাকালীন অবস্থায় রশি পেঁচিয়ে যায়। পরে সেটি কর্ণফুলী নদীতে ডুবে যায়। খবর পেয়ে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড ঘাঁটি চট্টগ্রাম থেকে ৫ সদস্যের একটি উদ্ধারকারী দল ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ডুবে যাওয়া জাহাজটির আংশিক অংশ দেখতে পায়। পরবর্তীতে মালিক পক্ষের সঙ্গে কথা বলে জানা যায় জাহাজটিতে ২০ জন ক্রু’র ছিলেন। এদের মধ্যে ১৪ জন সাঁতরে তীরে উঠতে পারলেও ৬ জন ক্রু নিখোঁজ রয়েছে। নিখোঁজ ব্যক্তিদের উদ্ধারে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড পূর্ব জোনের একটি ডুবুরি দল উদ্ধার অভিযান শুরু করে। গত ১৩ অক্টোবর অভিযান চলাকালীন আনুমানিক সকাল সাড়ে ১০টায় নেভাল বার্থ-৬ এর কাছাকাছি একটি লাশ, সাড়ে ১১টায় ড্রাই ডক-এর বিপরীত দিকে আরও একটি লাশ এবং দুপুর ১২টার দিকে মেরিন একাডেমির সামনে ভাসমান অবস্থায় তৃতীয় লাশ উদ্ধার করে।

পরে একই দিন বিকেলে সদরঘাট সংলগ্ন এলাকার মাঝ নদী থেকে আরো একটি লাশ উদ্ধার হয়। সর্বশেষ আজ শনিবার মেরিন সেলভেজ বার্জ-১ এন্ড জেনুইন এন্টারপ্রাইজ কর্তৃক ফিশিং ট্রলারটি ফিশারিজ ঘাটে সেলভেজ করানো হয়। সেলভেজ অবস্থায় কোস্ট গার্ড পূর্ব জোনের ডুবুরি দল ইঞ্জিন রুম থেকে একটি এবং ক্রু কেবিন থেকে আরো একটিসহ মোট দুইটি লাশ উদ্ধার করে। এই নিয়ে এই জাহাজ ডুবির ঘটনায় নিখোঁজ থাকা মোট ৬ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনি আরও জানান, জাহাজ মালিক পক্ষের সঙ্গে কথা বলে আর কেউ নিখোঁজ না থাকায় উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।