কালুরঘাটের বালু সম্রাট
পুলিশ পরিচয়ে চুরির মামলার আসামী পাপ্পি -ববির বিরুদ্ধে সাইবার ট্রাইবুনালে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক ::

চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর আলোচিত বালু সম্রাট মনসুর আলম পাপ্পী ও তার ভাই মোহাম্মদ আলম ববির বিরুদ্ধে সাইবার ট্রাইবুনাল ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী মোহাম্মদ হাসান।

সম্প্রতি পুলিশ পরিচয়ে একটি চক্র ড্রেজিং এর ফাইপ চুরি চেষ্টা চালায়। এই ঘটনায় পাঁচজনকে আসামি করে হাসান বিল্ডার্সের ম্যানেজার চট্টগ্রামের চান্দগাঁও থানায় মামলা দায়ের করে। সেই মামলার অন্যতম আসামী পাপ্পি ও ববি। সোমবার (১৪ নভেম্বর)   ‘পুলিশ পরিচয়ে চুরির চেষ্টা ‘ মামলার আসামী মনসুর আলম পাপ্পী ও মোহাম্মদ আলম ববির বিরুদ্ধে চট্টগ্রামের সাইবার ট্রাইবুনালে মামলা দায়ের করেন হাসান বিল্ডার্সের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হাসান।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৫/২৯/৩৫ ধারায় চট্টগ্রামের সাইবার ট্রাইবুনালে এই মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মোহাম্মদ হাসানের আইনজীবী এডভোকেট  আনোয়ার হোসেন আজাদ জানান, পুলিশ পরিচয় চট্টগ্রামের কালুরঘাটের সাইট থেকে ফাইপ চুরির চেষ্টাকালে তিনজন হাতে নাতে আটক হন। এই মামলার পাঁচ আসামীর মধ্যে অন্যতম মনসুর আলম পাপ্পী ও মোহাম্মদ আলম ববি হাইকোর্ট থেকে জামিন নেবার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমার মক্কেল ব্যবসায়ী মোহাম্মদ হাসানকে নিয়ে বিষোদগার করেছেন, তার  চরিত্রহনন করেছেন। চুরির মামলার বাদিকে ফেসবুকে   হুমকি দিয়েছেন। ‘

আজাদ আরও  জানান, ২০১৮ সালের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৫/২৯ /৩৫ দায়ের করা মামলায় আলহাজ্ব  মোহাম্মদ আলম ববি, মনসুর আলম পাপ্পী, মামুন চৌধুরী, ওয়াহিদুল আলম বাদশাসহ অজ্ঞাতনামা আরো কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে। আদালত মামলাটি তদন্তে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) দায়িত্ব দিয়েছেন। ‘

সম্প্রতি কালুরঘাট এলাকায় পুলিশ পরিচয়ে এক ব্যক্তি কিছুদিন আগে নগরীর হাসান বিল্ডার্সের মোহাম্মদ হাসানকে ফোন করে নানা প্রকার ভয়ভীতি দেখায়। একই চক্র পুলিশ পরিচয়ে কালুরঘাট এলাকায় ড্রেজারের যন্ত্রপাতি চুরির চেষ্টা চালায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে হাতেনাতে ওই চক্রের তিন সদস্যকে আটক করে । নগরের চান্দগাঁও থানায় পাঁচজনকে আসামি করে দায়ের করা চুরির মামলার অপর দুই আসামি মনসুর আলম পাপ্পী ও মোহাম্মদ আলম ববি হাইকোর্ট থেকে জামিন নেবার পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মামলার বাদিকে হুমকি প্রদান করেন।

মনসুর আলম পাপ্পী বোয়ালখালী আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি বলে জানা গেছে। দুইভাই কর্ণফুলীর অধিকাংশ বালুর মহাল নিয়ন্ত্রণ করে আসছে দীর্ঘদিন থেকে।