সাংবাদিক আবু আজাদকে মারধরের ঘটনায় এক আসামিকে গ্রেফতার

মারামারির

বাংলাদেশ মেইল ::

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় সাংবাদিক আবু আজাদকে মারধরের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার এক আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত রবিবার অবৈধ ইটভাটার সংবাদ করতে গেলে বিজনেস স্টান্ডার্ডের প্রতিবেদক আবু আজাদকে মারধর করার পাশাপাশি অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে রাখা হয়।

রাঙ্গুনিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহবুব মিলকী বলেন, আসামি কাঞ্চন তুড়িকে সোমবার (২৬ ডিসেম্বর) রাত ১১টা ৫০ মিনিটে রাঙ্গুনিয়া উপজেলার রানীর হাট এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সাংবাদিক আবু আজাদের উপর হামলার প্রতিবাদে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন সমাবেশ করেছে মঙ্গলবার সকালে। রাঙ্গুনিয়ায় দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড এর সাংবাদিক আবু আজাদের ওপর হামলার প্রতিবাদ, হামলাকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মঙ্গলবার সকাল ১০টায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব চত্বরে সমাবেশের ডাক দেয় চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে)।

প্রসঙ্গত, রোববার সকালে রাঙ্গুনিয়ায় অবৈধ ইট ভাটার ছবি তোলায় ইসলামপুর ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মহিউদ্দিন তালুকদার মোহনসহ ৫-৬ জন পিস্তল ঠেকিয়ে সাংবাদিক আবু আজাদকে মারধর করে। অস্ত্রের মুখে মোহন ওই সাংবাদিককে গাড়িতে তুলে স্থানীয় মঘাছড়ি বাজারে নিয়েও কয়েক দফা পেটায়। এরপর তার কার্যালয়ে বেঁধে রেখে নির্যাতন করে। তার মোবাইল ফোন ভেঙে ফেলে এবং মানিব্যাগ ও আইডি কার্ড- সব কেড়ে নিয়ে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করা হয়। মারধরের এক পর্যায়ে মোহনের মোবাইল ফোন দিয়ে আবু আজাদের সঙ্গে ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী সঙ্গে ফোনে কথাও বলে। এরপর ওই সাংবাদিকের পকেটে মোহন নিজের ভিজিটিং কার্ড ঢুকিয়ে দিয়ে ক্ষমতা থাকলে কিছু করতে বলে হুমকিও দেয়।

সোমবার সন্ধ্যায় ইসলামপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মহিউদ্দিন তালুকদার মোহন, চেয়ারম্যান সিরাজ উদ্দিন চৌধুরী, ইট ভাটার ম্যানেজার কামরান, মোহনের সহযোগী কাঞ্চন তুড়ির নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত আরও ৫-৭ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী সাংবাদিক আবু আজাদ।