বিশ্বের ক্ষণজন্মা মহাবীরের নামের পাশে বঙ্গবন্ধুর নামটি জ্বলজ্বল করে ভাসবে- ড. অনুপম সেন

নিজস্ব প্রতিবেদক :::

বিশিষ্ট সমাজ বিজ্ঞানী ও প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. অনুপম সেন বলেছেন, বাংলাদেশ বিরোধী অপশক্তি মোকাবিলায় তরুণ প্রজন্মকে অগ্রণী ভুমিকা রাখতে হবে। সরকারের বর্তমান উন্নয়ন ও স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানে প্রশংসনীয় ভুমিকা রাখছে সুচিন্তা ফাউন্ডেশন।

মঙ্গলবার ( ২৮ শে আগস্ট) বিকেলে সুচিন্তা চট্টগ্রাম আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

ড. অনুপম সেন বলেন, জাতির জনক ও তার পরিবারের এই নির্মম হত্যাযজ্ঞ বাংলাদেশের ইতিহাসে চিরস্থায়ী কলঙ্কজনক অধ্যায় হয়ে থাকবে।বিংশ শতাব্দীতে হাতেগোনা যে কজন মহানায়ক নিপীড়িত মানুষের মুক্তির জন্য পৃথিবীতে অমরত্ব লাভ করেছেন, তাদের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর নামটি অন্যতম।

তিনি বলেন, ‘ সারাবিশ্বের ক্ষণজন্মা মহাবীরের নামের পাশে বঙ্গবন্ধুর নামটি জ্বলজ্বল করে ভাসছে। কেউ শত অপচেষ্টা করেও এ নামটি কখনো মুছতে পারবে না। শেখ মুজিবুর রহমান কেবল একজন ব্যক্তির নাম নয়, তিনি নিজেই এক অনন্যসাধারণ ব্যতিক্রমী ইতিহাস। ‘

আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য নোমান আল আহমুদ বলেন, বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার মাধ্যমে মূলত স্বাধীন রাষ্ট্র বাংলাদেশকেই খুন করার অপচেষ্টা করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, হাজার বছরের বহমান জাতীয় সংষ্কৃতি এবং মুক্তিযুদ্ধের আদর্শকে ভূলুণ্ঠিত করা হয়েছে। বর্তমান প্রেক্ষাপটে তরুণ প্রজন্মকে ঐক্যবদ্ধ করে জামায়াত বিএনপির ষড়যন্ত্র রুখে দিতে হবে। আগামী নির্বাচন অপশক্তির ষড়যন্ত্র রুখে দিতে সকল ছাত্রজনতাকে প্রস্তুত হতে বলেন।

এসময় সংসদ সদস্য মহিউদ্দিন বাচ্চু বলেন, বর্তমান সরকারের উন্নয়নের কথা জনগণের কাছে পৌঁছে দিতে এবং মাদ্রাসার শিক্ষার্থী – শিক্ষকদের জাতীয় সংগীতের প্রচলন শুরু করে সুচিন্তা ফাউন্ডেশন যে উদাহরণ তৈরি করেছে সেটি যৃগ যুগান্তরে আমাদের পথ দেখাবে। ‘

আলোচনা সভায় চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এটিএম পেয়ারুল ইসলাম বলেন, সপরিবারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যার মধ্য দিয়ে উগ্রবাদ ও অসহিষ্ণুতার রাজনীতি শুরু হয়েছিল দেশে। বাংলাদেশকে একটি ব্যর্থ রাষ্ট্র হিসেবে প্রমাণ করতে কুঠারাঘাত করা হয়েছে অর্থনৈতিক সংষ্কার পরিকল্পনাগুলোতে। বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখলকারী সরকারগুলোর সঙ্গে রাতারাতি পাকিস্তানি জান্তা ও উগ্রবাদী কিছু রাষ্ট্রের অভিনব সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বর্তমানেও একই দৃশ্য আমাদের সামনে উপস্থিত । বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচার হয়েছে, তেমন করে খালেদা- তারেকের বিচার হয়েছে। ভবিষ্যৎ তারেককে দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সুচিন্তা চট্টগ্রামের সমন্বয়ক জিনাত সোহানা চৌধুরী।

তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু রাজনীতিতে প্রবেশ করেছিলেন প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর উন্নয়ন নিশ্চিত করার জন্য, তার গোটা জীবন বিশ্লেষণ করলে এ কথা নির্দ্বিধায় বলা যায়। পাহাড়সম প্রতিকূলতার মধ্যে দাঁড়িয়েও তিনি গরিব-দুঃখী ও শ্রমজীবী মানুষের কথা বলেছেন। মাত্র সাড়ে ৩ বছর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশ তথা তার সোনার বাংলা গড়ার নেতৃত্ব দিয়েছেন। দেশের উন্নয়নের ক্ষেত্রে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর অংশগ্রহণ, ক্ষমতায়ন ও অধিকারের জন্য সুযোগ সৃষ্টি করেছেন। বঙ্গবন্ধু আমাদের চিরন্তন প্রেরণার উৎস। তার কর্ম, নীতি, আদর্শ ও দর্শন বেঁচে থাকবে অনন্তকাল। তার উন্নয়ন দর্শনকে ব্যাখ্যা, বিশ্লেষণ ও প্রয়োগ অত্যন্ত জরুরি।

সুচিন্তা চট্টগ্রামের সমন্বয়ক এডভোকেট জিন্নাত সোহানা চৌধুরীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভার
সঞ্চালনা করেন সংগঠনের সদস্য ও নগর যুবলীগের সহ সভাপতি দেবাশীষ পাল দেবু।

চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে অনুষ্ঠিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন
ট্যুরিস্ট পুলিশ চট্টগ্রাম রিজিয়নের পুলিশ সুপার মো: আপেল মাহমুদ, চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ড্রাস্ট্রিজের সভাপতি ওমর হাজ্জাজ,বিজিএমইএ’র সহ সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, সুচিন্ত৷ বাংলাদেশ চট্টগ্রামের যুগ্ম আহবায়ক ডাঃ মোঃ হোসেন আহামদ,
আবুল হাসনাত চৌধুরী, যুগ্ম আহ্বায়ক আবুল হাসনাত চৌধুরী, ফ্লোরিডা আওয়ামী লীগের লীগের সভাপতি মোঃ ইমরান, চট্টগ্রাম মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান আজিজ, সাংগঠনিক সম্পাদক মনোয়ার হোসেন নোবেল, যুবলীগ নেতা সফিউর রহমান টিপু, কাজী মোঃ আরিফ, মোঃ সাজিবুল ইসলাম সজিব, সরকারি সিটি কলেজ ছাত্রসংসদের জিএস মো: মাকসুদুর রহমান, ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক জসিম উদ্দিন, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সাইফুল ইসলাম সাইফ
মোঃ সালাউদ্দিন ইমরান মাহমুদ রনি, মোহ হায়দার,
যুব নেতা সেলিম,রেজাউল করিম, মো:আশরাফ আলমপ্রমুখ৷।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮তম শাহাদৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে নানা কর্মসূচি পালন করে সুচিন্তা ফাউন্ডেশন।

বাংলাদেশ মেইল /নাদিরা শিমু/NS