কুতুবদিয়ায় চার প্রতিষ্ঠানকে ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা

রায়াতুল ইসলাম রাহাত, কুতুবদিয়া প্রতিনিধি 

কুতুবদিয়ায় তিনটি ওষুধ ফার্মেসী ও একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। বুধবার দুপুরে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে এ অভিযান পরিচালনা করেন, উপজেলা সহকারী (ভুমি) কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জর্জ মিত্র চাকমা। এ সময় মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ মজুদ ও বিক্রি, অপরিচ্ছন্ন, লাইসেন্স সহ বিভিন্ন অনিয়মে ৪টি প্রতিষ্ঠানকে ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

জানা যায়, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিকার আইন ২০০৯ এর ৫৩ ধারায় দ্বীপের বড়ঘোপ ও ধূরুং বাজার সংলগ্ন তিনটি ফার্মেসী ও একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় কুতুবদিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের গেইটের সামনে নেছার উদ্দিনের মালিকানাধীন ন্যাশানাল ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে ২০,০০০/ টাকা ও জিয়াবুল হকের মালিকানাধীন আশ-সেফা ফার্মেসীকে ৫ হাজার টাকা, ধূরুং বাজারে আব্দুর রহমানের মালিকানাধীন মেসার্স নকিব মেডিকেল হলকে ২০ হাজার টাকা ও হামিদ হোছাইনের মালিকানাধীন হোছাইন মেডিকেল স্টোরকে ২০ হাজার টাকা সহ ৬৫ হাজার টাকা অর্থ দন্ড আরোপ ও জরিমানা আদায় করা হয়। এসব প্রতিষ্ঠানে নামে-বেনামে এবং মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ গুলোও জব্দ করে এবং সেগুলো ধ্বংস করে ভ্রাম্যমান আদালত।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক জর্জ মিত্র চাকমা জানান, অভিযানের প্রথম দিনে চার প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হয়েছে। তাদের লাইসেন্সের শর্তাগুলো পালনে একমাস সময় দেওয়া হয়েছে। অমান্য করলে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে, জনস্বার্থে এমন অভিযান অব্যাহত থাকবে। অভিযানে উপস্থিত ছিলেন, কুতুবদিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. গোলাম মোস্তফা নাদিম, চিকিৎসক রেজাউল হাসান, চিকিৎসক শামীমসহ প্রমুখ। ভ্রাম্যমান আদালতকে কুতুবদিয়া থানার একদল পুলিশ সহযোগিতা করেন।

এদিকে, অভিযানের খবর পেয়ে হাসপাতাল সড়ক ও ধূরুং বাজারের কিছু ফার্মেসি বন্ধ করে। পরে, ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান শেষ হলে পূনরায় ফার্মেসী গুলো চালু করতে দেখা যায়।